পেওনার মাস্টার কার্ড কেন পান না?

জব প্রপোজালের সর্বনাশ করে দেয়া কিছু বাক্য – রিসার্চ পেপার
July 19, 2017
Fiverr Introduction For Beginners
September 24, 2017

পেওনার মাস্টার কার্ড কেন পান না?

পেওনার মাস্টার কার্ড কেন পান না? কোন বিষয় গুলোতে খেয়াল রাখলে কার্ড হাতে পাবেন।

 

বর্তমানে ফ্রিল্যান্সারদের একটি বড় সমস্যা হলো পেওনারে অ্যাপ্লাই করা এবং অ্যাপ্রুভ হওয়া সত্ত্বেও কার্ড হাতে আসে না। অনেক বার চেষ্টা করেও বিফল হন। এর কারন এবং সমাধানের কিছু উপায় আলোচনা করা হলো।
পেওনারে অ্যাপ্লাই করে ৩ শ্রেণীর ব্যক্তিরা:
১। $25 বোনাসের আশায়
২। হুদাই পকেটে/মানিব্যাগে নিয়ে শো অফ করার আশায়
৩। ইনকাম সোর্স আছে এবং ইনকাম পেওনারের মাধ্যমে উইথড্র করার আশায়
আসুন এই ৩ শ্রেণী নিয়ে বিস্তারিত কিছু জেনে নেই:
১। শুধুমাত্র $25 বোনোসের আসায় অনেকেই বিভিন্ন কার্ড হোল্ডারের রেফারেল লিংক দিয়ে অ্যাপ্লাই করে থাকে। আর যথাযথ কোনো ইনকাম সোর্স দেখাতে ব্যর্থ হয়। তারপরও বিভিন্ন উপায়ে অ্যাপ্রুভ হয় কিন্তু কার্ড হাতে আসে না। আর ৭০% ক্ষেত্রেই এই $25 বোনাস পাওয়া হয় না।
২। অনেকেই আছে যাদের কোনো ইনকাম সোর্স নেই কিন্তু হুদাই একটা কার্ড পকেটে নিয়া ঘোরে। আমার বাসার পাশে একটা ছেলে আছে। যার ১০ কোম্পানীর ১০ টা মাস্টারকার্ড। কিন্তু কোনো ইনকাম সোর্স নাই। একদিন ওর সাথে দেখা আমাকে কার্ড গুলো দেখিয়ে বলে, “আপনার তো ভাই একটা মাস্টারকার্ড, আর আমার দেখেন ১০ টা, দেখছেন?” আমি আর কোনো কথা বলিনি। আসলে এই শ্রেণীর ব্যক্তিবর্গ কার্ড নিয়া জাস্ট শো অফ (বাংলায় ফুটানি) করাকেই মুখ্য মনে করে। কিন্তু ৯০% ক্ষেত্রেই কার্ড হাতে আসে না।
৩। যাদের ইনকাম সোর্স আছে, পেওনারের মাধ্যমে তা উইথড্র করতে চান, সব কিছু ঠিকঠাক ভাবেই করেন তারপরও কার্ড হাতে আসে না। আমার গাইড গুলো শুধু তাদের জন্যই। বাকি দুই শ্রেণীর জন্য নয়।
 
পেওনারের জন্য আবেদন প্রক্রিয়া:
কিভাবে আবেদন করবেন তার বিস্তারিত গ্রুপের ফাইল সেকশনে দেয়া আছে। আমি শুধু গুরুত্বপূর্ণ বিষয়গুলো তুলে ধরবো।
প্রথমত পেওনারে কখনো সরাসরি অ্যাপ্লাই করবেন না। আর রেফারেল লিংকের মাধ্যমে অ্যাপ্লাই করা থেকেও বিরত থাকতে পারলে ভালো হয়। কারন পেওনার আপনাকে শুধু শুধু $25 দিবে না। তারা ব্যবসা করতেই আপনাকে কার্ড দেবে, লোকসানের জন্য না। পেওনার তখনই আপনাকে কার্ড প্রেরন করবে যখন তারা নিশ্চিত হবে যে ওই কার্ডটি দিয়ে তাদের ব্যবসায় লাভ হবে। যদি তারা মনে করে যে এই অ্যাকাউন্টধারীকে কার্ডটি দিলে ওই কার্ড + শিপিং খরচটাই বিফলে যাবে, তখন তারা কার্ড অবশ্যই প্রেরণ করবে না। নিয়মটি কোথাও লেখা নাই, কিন্তু সবার জানা থাকা উচিত যে, প্রত্যেকটি বিজনেস এর কিছু অলিখিত নিয়মকানুন সংবিধান থাকে।
সোর্স:
পেওনারে অ্যাপ্লাই করার আগে নিশ্চিত করুন যে, আপনার কোনো ইনকাম সোর্স আছে কিনা যেমন ফ্রিল্যান্সিং এবং তা থেকে রেগুলার আয় হচ্ছে কিনা। যদি থাকে তাহলে নিশ্চিত করুন যে, ওই ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেস পেওনার সাপোর্টেড কিনা। যদি সাপোর্টেড হয় তাহলে মার্কেটপ্লেস এর ভিতর থেকে পেওনারে অ্যাপ্লাই করুন। সরাসরি পেওনারে অ্যাপ্লাই করবেন না।
 
আইডি ভেরিফিকেশন ডকুমেন্ট:
আমি ব্যক্তিগত ভাবে আইডি ভেরিফিকেশনের জন্য NID কার্ডকে সমর্থন করি না। কারন বাংলাদেশের বর্তমান NID কার্ডে পেওনার এবং আপওয়ার্কের অ্যালার্জী আছে। NID কার্ড দিয়ে অনেকেই ভেরিফাই করেছেন এবং কার্ডও পেয়েছেন। কিন্তু অনেকেই লক্ষ্য করেছেন বর্তমানে পেওনার দ্বিতীয় আরেকটি ”ফটো আইডি” অ্যাড করার জন্য ইমেইল করেছে। যারা NID দিয়ে ভেরিফাই করেছেন তাদের সবাই এই ইমেইলটা পাবেন, অনেকে ইতিমধ্যে পেয়েছেন। যারা ৭ দিনের মধ্যে অন্য কোনো আইডি যেমন পাসপোর্ট, ড্রাইভিং লাইসেন্স ইত্যাদি অ্যাড করতে পারেননি তাদের অ্যাকাউন্ট ক্লোজ হয়ে গেছে। যারা পেরেছেন তাদেরটা চালু আছে। তাই অ্যাকাউন্ট খোলার আগে নিশ্চিত করুন যে আপনার একটি পাসপোর্ট অথবা একটি ড্রাইভিং লাইসেন্স আছে কিনা। যদি থাকে তাহলে শুধু সেটা দিয়ে ভেরিফাই করুন। এক্ষেত্রে NID এড়িয়ে চলুন। ভেরিফিকেশন নিয়ে পরবর্তিতে আর কোনো সমস্যা হবে না।
ইনকাম সোর্সের প্রমানাদি:
পেওনার আপনাকে রিকোয়েস্ট করুক আর না করুক আপনি ইমেইলের মাধ্যমে তাদের সাপোর্টে আপনার ইনকাম সোর্সের প্রমান স্বরূপ কিছু স্ক্রিনসট (ফিন্যান্সিয়াল রিপোর্ট, প্রোফাইল ভিউ ইত্যাদি) পাঠিয়ে দিন। ২৪-৪৮ ঘন্টার মধ্যে আপনার অ্যাকাউন্ট ভেরিফাই করে কার্ড শিপ করে দিবে এবং তার একটি ইমেইল ও তারা আপনাকে সেন্ড করবে।
শিপিং অ্যাড্রেস:
শিপিং অ্যাড্রেস হলো কোম্পানী থেকে কার্ড প্রেরন করার পর কার্ডটি আপনার কাছে পৌছাবে কিনা তার চাবিকাঠি। ধারাবাহিক কোনো ঠিকানা এখানে লিখবেন না। যেমন গ্রাম:………….. পোস্ট: ………….. থানা: ………… জেলা:…………..। এভাবে লিখলে কার্ড না আসার সম্ভাবনাই বেশি। একটি সম্পুর্ন ঠিকানা লিখুন। সম্পুর্ন ঠিকানা হলো- হোল্ডিং, রোড/লেন/স্ট্রিট, বাসা/অফিসের নাম, এরিয়া (গ্রাম হলে গ্রাম), পোস্ট অফিস + পোস্ট কোড, থানা, জেলা। আর এই ঠিকানার মধ্যে কোনো ধরনের সেমিক্লোন, হাইফেন এগুলো কখনো ব্যবহার করবেন না। সবথেকে ভালো হয় আপনার বাসা বা বাড়ির কাছাকাছি পরিচিত কোনো অথরাইজড অফিস/দোকানের ঠিকানা দিয়ে দিলে (পোস্টকোড আবশ্যক)।
 
তাহলে মূল বিষয় বস্তু হলো, কার্ড হাতে পেতে আপনার দরকার:
Ø ইনকাম সোর্স এবং তার প্রমান
Ø পাসপোর্ট অথবা ড্রাইভিং লাইসেন্স
Ø অথরাইজড শিপিং অ্যাড্রেস
এই তিনটি বিষয় যথাযথ ভাবে পূরণ করলে আপনার হাতে পেওনার কার্ড আসবে যদি মাঝ পথে ফ্লাইট ব্যবস্থাপনায় কোনো সমস্যা না হয়।
সর্বশেষ কথা হলো, যে কোনো কিছুতে অ্যাপ্লাই করার জন্য একটা পারফেক্টনেস দরকার। যেটা আপনা থেকেই এসে যায়, কেউ কাউকে শিখাতে পারে না। আর সেই পারফেক্টনেস নিজে থেকে আয়ত্ত্ব করুন এবং সফল হোন।
ধন্যবাদ
Credited

Admin Support Specialist at Upwork

Comments

comments

Learning Code
Learning Code
With a passion for Knowledge, "Learning Code" has been created to explore things like Free Resources For Web Developers, Designers, Photographers, and Inspiration. Learning Code believes {no age limit to learn} . So We can start anytime. Also I wish you will join in this website. because its your website to promote yourself. Show your creativity.