ফ্রিলান্সারের বিদ্যুৎ সমস্যার সমাধান

What is SEO ???
January 12, 2017
Advertise Your Business Using Bing
January 29, 2017

ফ্রিলান্সারের বিদ্যুৎ সমস্যার সমাধান

Electricity Problem

আমরা যারা ফ্রিল্যান্সিং করি তারা কি রকম প্রতিকূলতার মধ্য দিয়ে এগোচ্ছি তা শুধু আমরাই জানি। বাহিরের মানুষজন এসব কিছুই বুঝবে না। প্রথম সমস্যা হচ্ছে কাজ শেখা। কাজ শেখার জন্য ভাল কোন প্রতিষ্ঠান নেই। যা আছে তার অধিকাংশই বাটপার। এরপর আছে ইন্টারনেট সমস্যা। অনেক জায়গাতেই এখনও ইন্টারনেট পৌছায়নি। মোবাইল কোম্পানি গুলো ইন্টারনেট দেয়ার নামে যা করছে তা ডাকাতি ছাড়া আর কিছু নাই। আমার ব্রডব্যান্ড লাইন এক সপ্তাহ কাটা ছিল।এই কয়েকদিন আমি মোবাইল ইন্টারনেট ব্যাবহার করছিলাম।এক সপ্তাহে আমার প্রায় ৫ হাজার টাকা খরচ হয়েছিল 🙁 আমার মাসে ইনকামই বা কত?

যা হোক কাজে কথায় আসি। আমার পোস্টের হেডিং যদি দেখেন, তবে বুঝে যাবার কথা আমি কি নিয়ে আলোচনা করতে চাচ্ছি। ফ্রিল্যান্সিং করতে গেলে যে সব সমস্যার সম্মুখীন হবেন তা আপনাকেই সমাধান করতে হবে। আমিও তাই করেছি। আমি যেহেতু গ্রামে থাকি তাই এখানে বিদ্যুতের সমস্যা প্রকট। একবার কারেন্ট গেলে ২/৩ ঘণ্টার আগে আসার নাম থাকে না। শুরুর দিকে এই সমস্যার কারনে অনেক কাজ ঠিক মোট জমা দিতে পারিনি। অনেক সমস্যা হয়েছে। এক সময় মনে হয়েছিল শহরে চলে যাই। আমি আমার এই সমস্যা কিভাবে সমধান করলাম সেটাই আজকে বলব।

কম্পিউটারের ব্যাকআপ এবং প্রটেকশনের জন্য, সবার অবশ্যই ভাল UPS ব্যাবহার করা উচিত। আমারও আছে। কিন্তু এটা দিয়ে আর যাই হোক বিদ্যুৎ সমস্যার সমাধান হয় না। কারন এর ব্যাকআপ টাইম অল্প। বেশি ব্যাকআপের UPS এর দাম অনেক। বাকি থাকল IPS সেটাও অনেক খরচ সাপেক্ষ। আর IPS কেনার সামর্থ্যও ছিল না। কি করা যায় চিন্তা করতে থাকলাম। যেহেতু ছোট বেলা থেকেই ইলেকট্রনিক্সের শখ ছিল, তাই একটা সমাধান বের করলাম। কিন্তু প্র্যাক্টিক্যাল করার সাহস হচ্ছিল না। যেহেতু আমি এখন আর ইলেকট্রনিক্স নিয়ে কাজ করি না তাই এলাকার এক ইলেক্ট্রিশিয়ান ছোট ভাইয়ের সাহায্য নিলাম। বেশ কয়েকবার এক্সপেরিমেন্ট করার পর অবশেষে সাফল্যের মুখ দেখলাম। গত একবছর ধরে আল্লাহর রহামতে বিদ্যুৎ নিয়ে আমার কোন টেনশন নাই।

মুলকথাঃ আমরা যে UPS ব্যাবহার করি তাঁর ব্যাটারি মাত্র ১২ এম্পিয়ারের এবং ক্ষমতাও কম। ফলে এটা বেশিক্ষণ ব্যাকআপ দিতে পারে না। কিন্তু আমরা যদি সেই ছোট ব্যাটারির জায়গায় বড় ব্যাটারি ব্যাবহার করি তবে ব্যকাআপ অনেক বাড়বে। কিন্তু সমস্যা হচ্ছে UPS এর ছার্জার বড় ব্যাটারি চার্জ দেয়ার জন্য উপযুক্ত নয়। তাই বড় ব্যাটারিকে আলাদা চার্জ করার ব্যাবস্থা করতে হবে। এটাই হচ্ছে মুল কথা। আমি তিন চাকার সিএনজি গাড়িতে যে ব্যাটারি ব্যাবহার করা হয় সেটা ব্যাবহার করেছি। এটা হেভি ডিউটির ৩৫ এয়াম্পিয়ারের ব্যাটারি। আপনি যদি LED মনিটর ব্যাবহার করেন, তবে প্রাথমিক অবস্থায় ৫-৬ ঘণ্টা ব্যাকআপ পাবেন। আমি সর্বচ্চ ৫ ঘণ্টা ৩০ মিনিট ব্যাক আপ পেয়েছি। আপনি যদি ৫০ আম্পিয়াররের ভাল কোম্পানি যেমন Volvo বা Hamko IPS ব্যাটারি ব্যাবহার করেন তবে ব্যাকআপ প্রায় ৭-৮ ঘণ্টা পাবেন। আমি নিচে ডায়াগ্রাম দিয়ে বাপ্যারটা বুঝিয়েছি। তবে UPS এ ৫০ আম্পিয়ারের বেশি ব্যাটারি ব্যাবহার করা যাবে কিনা তা আমার জানা নাই।

খরচ বাচাতে চাইলে আপনি পুরাতন ভাঙ্গারির দোকানে পুরাতন নষ্ট UPS পেতে পারেন ২০০/৩০০ টাকার মধ্যে। সেটার ট্রান্সফরমার ব্যাবহার করতে পারেন। না হলে বাজার থেকে ৬/৭ অ্যাম্পিয়ারের ভাল ১২ ভোল্টের ট্রান্সফরমার কিনতে হবে। এটাই ব্যাটারিকে চার্জ করবে। সেটিংসের উপর ভিত্তি করে ৩-৫ ঘণ্টায় ব্যাটারি ফুল চার্জ হবে। সুইচের মাধ্যমে আপনাকে ম্যানুয়ালি চার্জ নিয়ন্ত্রণ করতে হবে। সাধারণত যতটুকু সময় ব্যাবহার করবেন তাঁর দ্বিগুণ সময় চার্জ করতে হবে। চাইলে আপনি অটোচার্জার সার্কিট ব্যাবহার করতে পারেন। এতে ব্যাটারি ফুল চার্জ হলে অটো বন্ধ হয়ে যাবে। আপনি ইচ্ছা করলে একটা ১২v এর LED লাইট ব্যাবহার করতে পারেন। ছোট ফ্যানও লাগাতে পারেন তবে এতে ব্যাকআপের সময় কিছুটা কমবে। ব্যাটারির পানি কমে গেলে পানি দিতে হবে। আমার সব খরচ মিলিয়ে প্রায় ৪৭০০ টাকা খরচ হয়েচিল। আমি গত এক বছর কোন সমস্যা ছাড়াই ব্যাবহার করছি। এখনও আমি গড়ে সাড়ে তিন ঘণ্টা ব্যাকআপ পাই।

Author

Golam Kamruzzaman

Graphic and Web Designer & Developer

 

 

With a passion for Knowledge, "Learning Code" has been created to explore things like Free Resources For Web Developers, Designers, Photographers, and Inspiration. Learning Code believes {no age limit to learn} . So We can start anytime. Also I wish you will join in this website. because its your website to promote yourself. Show your creativity.

Comments

comments

Learning Code
Learning Code
With a passion for Knowledge, "Learning Code" has been created to explore things like Free Resources For Web Developers, Designers, Photographers, and Inspiration. Learning Code believes {no age limit to learn} . So We can start anytime. Also I wish you will join in this website. because its your website to promote yourself. Show your creativity.